1. kamrulcse1@gmail.com : janatarkontho_24 : জনতারকণ্ঠ
  2. mostufakamalbd@gmail.com : মোস্তফা কামাল : মোস্তফা কামাল
  3. shariful.ja81@gmail.com : মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম : মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম
সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ০২:৩৪ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি :
আপনার আশপাশে ঘটে যাওয়া যেকোনো ঘটনা বা যেকোনো বিষয়ে জনতারকণ্ঠে লিখে পাঠান।। লেখা পাঠাতে ইমেইল করুন : newsjanatarkontho@gmail.com
শিরোনাম :
যশোরের শার্শা উপজেলার ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে কিশোর ধর্ষক আটক দশম ও দ্বাদশে নিয়মিত ক্লাস, অন্যদের সপ্তাহে এক দিন: শিক্ষামন্ত্রী সখিপুরে জমি ও বাড়ি (স্বপ্নের ঠিকানা) পেয়েছেন ভূমিহীন,গৃহহীন ৪৫ টি পরিবার আ’লীগের সাবেক মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকীর অবৈধভাবে দখল করা সরকারি জায়গা উদ্ধার আমার অত্যন্ত আনন্দের দিন আজ : প্রধানমন্ত্রী সখিপুরে বনাঞ্চলের ভিতর স্থাপিত শতাধিক অবৈধ করাতকলের মধ্যে ৬টি উচ্ছেদ সখিপুরে শিল্পপতির ভূমি জবর দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন সখিপুরে কলেজ ছাত্র হত্যাকারী সনাক্ত ও গ্রেফতার 2 ভিজিএফ’র চাল আত্মসাত, কলাপাড়ার ইউপি চেয়ারম্যান সাময়িক বরখাস্ত সখিপুরে কলেজ ছাত্র রবিনকে হত্যার অভিযোগ, ১ জন আটক

টাঙ্গাইলের সাবেক মেয়র মুক্তির হত্যা মামলায় জামিন নামঞ্জুর

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০, সময়: ৫:২৭ pm
  • ৯৬ বার

জনতার কণ্ঠ ২৪.কম

টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলার আসামী সাবেক পৌর মেয়র সহিদুর রহমান খাঁন মুক্তির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।বুধবার (০২ ডিসেম্বর) বিকালে উভয় পক্ষের শুনানি শেষে টাঙ্গাইল অতিরিক্ত প্রথম জেলা ও দায়রা জজের বিচারক মো. সিকান্দর জুলকার নাইন এই আদেশ দেন। সহিদুর রহমান খাঁন মুক্তি টাঙ্গাইল-৩ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আতাউর রহমান খাঁনের ছেলে ও সাবেক সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানার ছোট ভাই। এরআগে দীর্ঘ ছয় বছর পলাতক থাকার পর আজ সকালের দিকে হঠাৎ প্রথম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আইনজীবির মাধ্যমে আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করেন। এসময় তার সাথে টাঙ্গাইল-৩ আসনের সংসদ সদস্য আতাউর রহমান খাঁন ও ওই আসনের সাবেক সংসদ সদস্য তার বড় ভাই আমানুর রহমান খাঁন রানা।টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত সরকারি কৌশলি ( পিপি) মনিরুল ইসলাম খান জানান, সকাল পৌঁনে ১১ টা দিকে সহিদুর রহমান তার বাবা সংসদ সদস্য আতাউর রহমান খান ও ভাই সাবেক সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানাকে সাথে নিয়ে টাঙ্গাইলের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে উপস্থিত হন।

এ সময় তারা আদালত কক্ষের ভিতর অবস্থান নিয়ে আত্মসমর্পনের কাগজপত্র জমা দেন। পরে উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিকেল তিনটার দিকে আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অতিরিক্ত সরকারি কৌশুলী মনিরুল ইসলাম, আসামী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন আব্দুল বাকী মিয়াসহ বেশ কয়েকজন আইনজীবী। বাদী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন মো. রফিকুল ইসলাম।প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি রাতে টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফারুক আহমদের গুলিবিদ্ধ লাশ তার কলেজপাড়া এলাকার বাসার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। ঘটনার তিনদিন পর তার স্ত্রী নাহার আহমেদ বাদি হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামী করে মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে গোয়েন্দা পুলিশ রাজা ও মোহাম্মদ আলীর নামক দুইজনকে ২০১৪ সালের আগস্ট মাসে গ্রেপ্তার করে।ওই দুই আসামীর জবানবন্দিতে এই হত্যার সাথে টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের তৎকালিন সাংসদ আমানুর রহমান খান রানা এবং তার অপর তিন ভাই পৌরসভার তৎকালিন মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি, ব্যবসায়ী নেতা জাহিদুর রহমান খান কাকণ ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পার জড়িত থাকার বিষয়টি বের হয়ে আসে। তার পরেই আমানুর ও সহিদুরসহ চার ভাই আত্মগোপনে চলে যান।পরবর্তীতে আমানুর ২২ মাস পলাতক থাকার পর আদালতে আত্মসর্মপন করেন। প্রায় দুই বছর হাজতে থাকার পর তিনি জামিনে মুক্ত হন। তবে তার অপর তিন ভাই এখনো পলাতক রয়েছেন। আদালতে এ হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..